ফাস্টফুড ও আমাদের উদাসীনতা

স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ ‌ও স্বাস্থ্যকর জীবনধারা অনুসরণে সচেতনতা সত্ত্বেও ‌এখনো মানুষের স্থূলতার একটি প্রধান কারণ ফাস্টফুড গ্রহণ। নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

বোস্টন ইউনিভার্সিটি পরিচালিত এক গবেষণায় বলা হয়েছে, ৩০ বছর আগে ফার্স্টফুড যতটা অস্বাস্থ্যকর ছিল এখন তার চেয়ে বেশি অস্বাস্থ্যকর এবং এটি ক্রমবর্ধমানভাবে মানুষের স্থূলতা বাড়িয়ে চলেছে।

গবেষণায় বলা হয়েছে, ফার্স্টফুডের আকার, এতে ব্যবহৃত ক্যালোরি এবং সোডিয়াম কনটেন্ট গত তিন দশক ধরে বেড়েছে। এই স্থূলতা ও সংশ্লিষ্ট রোগ বৃদ্ধির জন্য আমাদের খাদ্য পরিবেশের পরিবর্তনকে দায়ী করেছেন গবেষকরা। তাঁরা বলেছেন, গত কয়েক দশক ধরে অস্বাস্থ্যকর ফার্স্টফুড বৃদ্ধির ঘটনা এর ফলে স্থূলতায় মৃত্যুর প্রধান কারণগুলোর একটি হয়ে উঠেছে।

গবেষণার ফল ‘জার্নাল অব দ্য একাডেমি অব নিউট্রিশন অ্যান্ড ডায়েটেটিক্স’-এ প্রকাশিত হয়েছে।

১৯৮৬ সাল থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ ফার্স্টফুড রেস্তোরাঁগুলোর ১০টিতে পরিবর্তনের ওপর এই গবেষণা চালানো হয়। এতে দেখা গেছে, ফার্স্টফুডের ক্যাটাগরির সংখ্যা যেমন বেড়েছে তেমনি বেড়েছে স্থূলতার জন্য দায়ী উপাদানের ব্যবহারও।

গবেষণা বলছে, ফার্স্টফুডে ক্যালোরির পরিমাণ বৃদ্ধির কারণ হলো মূল খাবার আইটেম ও ডেজার্টের আকার ও পরিমাণ বৃদ্ধি। ১০টি মেনুর পুরো ক্যাটাগরিজুড়ে দেখা গেছে তাতে ব্যবহৃত সোডিয়ামের পরিমাণও বেশি। এদিকে, ডেজার্টে দেখা গেছে আয়রণ ও ক্যালসিয়ামের মাত্রা বেশি যা হাঁড়ের স্বাস্থ্যের জন্য দুটি গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি।

আপনার মন্তব্য