আমেরিকায় ব্যতিক্রমধর্মী কুরআনের আয়াত প্রদর্শনী

আমেরিকার টেক্সাস টেক ইউনিভার্সিটি জাদুঘরে ব্যতিক্রমধর্মী কুরআনের বাণী প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। কুরআনের নির্বাচিত আয়াতসমূহ শৈল্পিক অলঙ্করণে তুলে ধরা হয়েছে এই প্রদর্শনীতে। সাথে সাথে প্রদর্শিত আয়াতের অর্থ, আয়াত ও সুরা নম্বরও তুলে ধরা হয়েছে।

গত ১৯ জানুয়ারি ৯ (শনিবার) প্রদর্শনী শুরু হয়েছে এবং তা চলবে পুরো সপ্তাহজুড়ে।

আরব বংশোদ্ভূত ক্যালিগ্রাফি শিল্পী মারওয়ান আরিদি এই প্রদর্শনীর আয়োজন করেছেন। মারওয়ান আরিদি একজন খ্যাতিমান ক্যালিগ্রাফি শিল্পী। যিনি মাত্র ১৫ বছর বয়সে শিল্পচর্চা শুরু করেন।

আরিদি বলেন, আমি চাই কুরআনকে আরও শৈল্পিকভাবে উপস্থাপন করতে। বিশেষত যেসব সফটওয়ার কোম্পানি ইসলামিক অ্যাপস তৈরি করে তাদের জন্য কাজ করতে চাই আমি। যেন তারা কুরআনকে আরও সুন্দরভাবে তুলে ধরতে পারে।

আরিদি এখনও বিভিন্ন সফটওয়ার কোম্পানির জন্য কাজ করছেন। আর এই প্রদর্শনীতে তিনি তার বিভিন্ন সময়ে করা শৈল্পিক কাজগুলোই তুলে ধরেছেন।

মারওয়ান আরিদি এ পর্যন্ত কুরআনের ১১৪টি চমৎকার ডিজাইন করেছেন। এসব ডিজাইনের ৩৭৬টি নির্বাচিত পৃষ্ঠা টেক্সাস মিউজামের প্রদর্শনীতে উপস্থাপন করা হয়েছে।

টেক ইউনিভার্সিটির পদার্থ বিদ্যা বিভাগের ছাত্রী সালওয়া মোহামিদান বলেন, ‘এই আয়োজনটি চমৎকার। কুরআনের প্রতিটি আয়াত-ই আপন বৈশিষ্ট্যে অনন্য। এই প্রদর্শনী কুরআনের প্রতিটি আয়াতের সৌন্দর্য্য তুলে ধরেছে। এটাও ঠিক হলের আয়তন ছোট হওয়ায় কুরআনের সব আয়াত তুলে ধরা যায়নি।’

লুবকের অধিবাসী সুসান কারকৌকলি বলেন, ‘ইসলাম ও কুরআনের প্রতি মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য একটি দারুণ উদ্যোগ এই প্রদর্শনী। এটি মানুষের সামনে কুরআনের শিক্ষা ও দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কুরআনের অলঙ্করণে ব্যবহৃত রঙ, গ্রাফিক ও ব্যাকগ্রাউন্ড সবকিছুই আমার ভালো লেগেছে।’

সালওয়া বলেন, আমার বিশ্বাস, এমন উদ্যোগ তরুণ ও যুবাদের মধ্যে কুরআন চর্চার আগ্রহ তৈরি করবে। তারা কুরআনের শৈল্পিক সৌন্দর্য্য ফুটিয়ে তুলতে আরও মনোযোগী হবে।

সূত্র : ইকনা

আপনার মন্তব্য