(পর্ব ৬) কুরআন বলেছে– যে কোন ধর্ম মানা যাবে

মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী


‘ধর্ম গ্রহণের স্বাধীনতা’ সম্পর্কে ডাক্তার জাকির নায়েকের মতবাদ হলো–

ডাক্তার জাকির নায়েক বলেন–

কুরআন আমাদেরকে যে কোন একটি ধর্ম বেছে নেয়ার স্বাধীনতা দিয়েছে। কুরআন যে কোন একটি ধর্ম বেছে নেয়ার স্বাধীনতা প্রসঙ্গে বলেছে —

لَا إِكْرَاهَ فِي الدِّينِ ‘দ্বীন সম্পর্কে কোন যবরদস্তি নেই’

কুরআন অনুমতি দিয়েছে আপনি আপনার ইচ্ছামতো ইশ্বরকে বেছে নিতে পারেন।

(দ্রষ্টব্য : ডা. জাকির নায়েক লেকচার সমগ্র, ভলিয়াম নং ৫, পৃষ্ঠা নং ১৫০ ॥ প্রকাশনায় : পিস পাবলিকেশন–ঢাকা)

ডাক্তার জাকির নায়েকের উক্ত বক্তব্যের সরাসরি ভিডিও লিঙ্ক  ইউটিউবে “Concept of God In Hinduism, Christianity, And Islam by Dr. Zakir Naik” নামে রয়েছে। উক্ত ভিডিওর ২ ঘন্টা ৩৮ মিনিট ১০ সেকেন্ড থেকে তার সেই বক্তব্য শুনতে পাবেন)

যদি কেউ ডাক্তার জাকির নায়েকের উক্ত লেকচার বাংলা ভার্সনে শুনতে চান, তাহলে নিম্নবর্ণিত ইউটিউব-লিঙ্কে লগইন করুন (উল্লেখ্য যে, এ ভিডিওটির ১ ঘন্টা ৫৮ মিনিট ২৯ সেকেন্ড থেকে তার সেই বক্তব্য রয়েছে) —

♦পর্যালোচনা♦

“দ্বীনের ব্যাপারে যবরদস্তি নেই”-এ আয়াতের শানে নুযূল অনুযায়ী ব্যাখ্যা হলো, জিযিয়া প্রদানকারী অমুসলিম জিম্মীদের কাউকে জোর করে ইসলামে দাখিল করানো যাবে না। কিন্তু এর মানে এটা নয় যে, যে যেই ধর্ম ইচ্ছা সেই ধর্ম পালন করতে কুরআন অনুমতি দিয়েছে। এটা ডাক্তার জাকির নায়েকের মনগড়া অপব্যাখ্যা ও ভ্রান্ত মতধারা।

যদি যে কোন ধর্ম গ্রহণের অনুমতি দেয়া হতো, তাহলে ইসলাম ছাড়া অন্য কোন ধর্ম গ্রহণ করলেও বেহেশত দেয়া হতো এবং জাহান্নাম থেকে মুক্তি দেয়া হতো। কিন্তু তা কখনো হবে না। (দেখুন : তাফসীরে ইবনে কাসীর, ১ম খ-, ৬৮৩ পৃষ্ঠা)

বরং পরকালীন মুক্তি ও কল্যাণের জন্য পবিত্র কুরআনে ইসলামকেই একমাত্র গ্রহণযোগ্য ধর্ম বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ সম্পর্কে পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন–
إِنَّ الدِّينَ عِندَ اللَّهِ الْإِسْلَامُ
“আল্লাহর নিকট মনোনীত ধর্ম একমাত্র ইসলাম।”

এটাও পড়তে পারেন  (পর্ব-৯) হায়াতুন্নবী (সা.) ও শহীদগণের জীবিত থাকা অস্বীকার

(সূরাহ আলে ইমরান, আয়াত নং ১৯)

আর অন্য ধর্ম পালনের পরিণতি সম্পর্কে পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন–
وَمَن يَبْتَغِ غَيْرَ الْإِسْلَامِ دِينًا فَلَن يُقْبَلَ مِنْهُ وَهُوَ فِي الْآخِرَةِ مِنَ الْخَاسِرِينَ
“যে ব্যক্তি ইসলাম ছাড়া অন্য কোন ধর্ম অবলম্বন করবে, তার থেকে তা কখনো গ্রহণ করা হবে না এবং সে পরকালে অকৃতকার্যদের অন্তর্ভুক্ত হবে।”

(আল-কুরআন, সূরাহ আলে ইমরান, আয়াত নং ৮৫)

এ আয়াতদ্বয়ে স্পষ্টভাবে ইসলাম ছাড়া অন্য কোন ধর্ম গ্রাহ্য নয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সুতরাং ডাক্তার জাকির নায়েক যে বলেছেন–কুরআন যে কোন ধর্ম গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে–সেটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা। তা তার বানানো মনগড়া খিউরি। মুসলমানদেরকে তার এ ভ্রান্ত থিউরির পথভ্রষ্টতা থেকে দূরে থাকবে হবে।

মন্তব্য যুক্ত করুন