বাবরী মসজিদ ইস্যুতে সারা দেশব্যাপী হেফাজতের বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত : প্রয়োজনে লংমার্চ ঘোষণা

ভারতের অযোধ্যায় ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রতিবাদে দেশের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের উদ্যোগে গতকাল (১৫ নভেম্বর) শুক্রবার বাদ জুমা সারা দেশে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমের উত্তর গেটে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ পরবর্তী একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগর সভাপতি আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী।

এছাড়াও চট্টগ্রাম মহানগরের উদ্যোগে চট্টগ্রাম আন্দরকিল্লা শাহী মসজিদ চত্বরে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। নগর সভাপতি মাওলানা তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হেফাজতের মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী।

আল্লামা বাবুনগরী তাঁর বক্তব্যে বলেন, বাবরি মসজিদ নিয়ে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছে তা চরম পক্ষপাতমূলক। মূলত এটি ক্ষমতাসীন উগ্রহিন্দুত্ববাদী মোদী সরকারের ফরমায়েশি রায়। এই রায়ে মুসলমানরা ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এটা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টিকারী রায়। মুসলমানদের নির্মূল করে হিন্দুত্ববাদী ভারতে রামরাজ্য প্রতিষ্ঠার রাষ্ট্রীয় ষড়যন্ত্র। মুসলিম বিশ্ব এই রায় ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।

তিনি বলেন, ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপের তথ্য অনুযায়ী এখানে কোন হিন্দু মন্দিরের অস্তিত্ব প্রমাণিত নয়। অথচ রাম জন্মভূমির কল্পিত দাবীকে কেন্দ্র করে মসজিদের জায়গাটি মন্দির নির্মাণের জন্যে দিয়ে দেয়া হলো। ১৫২৯ সালে নির্মিত প্রায় পাঁচশত বছরের পুরোনো ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদটি ব্রিটিশ বেনিয়া এবং ভারত স্বাধীনতার পর মহাত্মা গান্ধী সহ অনেক হিন্দু সরকার ক্ষমতায় ছিল কিন্তু তারা বাবরী মসজিদ নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র করেনি। আজকে মুসলিম বিদ্বেষী জালেম মোদী সরকার ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের মাধ্যমে বাবরী মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণের রায় দিয়ে মুসলিম উম্মাহর সাথে হিন্দুস্তানের যুদ্ধ (গজওয়ায়ে হিন্দ) বাঁধানোর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে দিয়েছে।

আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী বলেন, মসজিদ বায়তুল্লাহর অংশ, বায়তুল্লাহর সম্মান রক্ষায় আমরা জীবন দিতে প্রস্তুত। আমাদের আর ঘরে বসে থাকার সময় নেই। লড়াইয়ের মাধ্যমে বাবরী মসজিদের জায়গা রক্ষা করতে হবে। মুসলমানদের শরীর থেকে রক্ত থাকতে শহীদ বাবরী মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির মুসলিম উম্মাহ মেনে নেবে না।

তিনি বলেন, প্রয়োজনে আমীরে হেফাজতসহ ওলামায়ে কেরামের পরামর্শ নিয়ে ভারত অভিমুখে লংমার্চ ঘোষণা করা হবে।

জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমের উত্তর গেটে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ সভাপতির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগর সভাপতি আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী বলেন, ১৫২৮ সালে ভারতের অযোধ্যায় বাদশাহ বাবর কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ যেখানে ছিল সেখানেই পুন: প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী ১৯৯২ সালে একটি উগ্র হিন্দুত্ববাদি জঙ্গী গোষ্ঠীর নেতৃত্ব দিয়ে ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদকে শহীদ করেছিল। আজ ২০১৯ সালে সেই মোদী সুপ্রিম কোর্টের উপর প্রভাব বিস্তার করে হিন্দুত্ববাদকে প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে মুসলিম জাতির ঐতিহ্যের প্রতীক ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদকে বিতর্কিত রায়ের মাধ্যমে উৎখাত করে, সেখানে তথাকথিত রাম মন্দির নির্মাণের সিদ্ধান্ত মুসলিম জাতির উপর লজ্জাজনকভাবে চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা এই বিতর্কিত ও অন্যায় সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। বাবরি মসজিদের ঐতিহ্য রক্ষায় অযোধ্যা অভিমুখে প্রয়োজনে ১৯৯৩ সালের মতো আবার লং মার্চ করা হবে।

তিনি বলেন, ৫০০ বছরের পুরাতন মসজিদকে ১৯৯২ সালে দুষ্কৃতকারীরা শহীদ করে দিয়েছে। ভারত সরকারের প্রয়োজন ছিল, এই মসজিদকে নিজ স্থানে পুন:নির্মাণ করে দেওয়া। কিন্তু তা না করে ভারত সরকার ষড়যন্ত্রমূলক সিদ্ধান্তের মাধ্যমে বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে। আমরা পরিষ্কার বলে দিতে চাই, বাবরি মসজিদের জায়গায় বাবরি মসজিদই থাকবে, অন্য কিছু মেনে নেওয়া হবে না। ২০০ কোটি মুসলমানরা বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দিরের সিদ্ধান্ত মেনে নিবে না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকারের উচিত, সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম দেশের সরকার হিসেবে বাবরি মসজিদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সরকারীভাবে প্রতিবাদ করা। এবং বর্তমান সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করা। অন্যথায় এই সরকারের ক্ষমতায় থাকার কোন অধিকার নাই।

এদিকে বি বাড়িয়া ও নোয়াখালী সহ দেশের অন্যান্য স্থানেও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাবরী মসজিদ ইস্যুতে সারা দেশব্যাপী হেফাজতের বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত : প্রয়োজনে লংমার্চ ঘোষণা

——————————–

মাসিক আদর্শ নারীর ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপনের নিয়মাবলি
https://adarshanari.com/featured-2/7150/

মাসিক আদর্শ নারী পরিচালিত মেয়েদের জন্যে ব্যতিক্রমধর্মী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মাদরাসা খাতুনে জান্নাত এর ফেসবুক পেইজ
Facebook.com/MadrasaKhatuneJannat

সাইটের ফেসবুক পেইজ
Facebook.com/adarshanari.web

অফিসিয়াল ফেসবুক গ্রুপ
Facebook.com/groups/adarsha.nari

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: