স্ত্রীর লজ্জাস্থানে আঙ্গুল প্রবেশ করানো ও ভেজা অনুভব হলে হুকুম কী?

প্রশ্ন-

লজ্জা লাগছে, তারপরও জানতে চাই ,,

স্ত্রীর লজ্জাস্থানে আংগুল প্রবেশ করানো কি ঠিক, এতে ইসলাম কি বলে?

আংগুল প্রবেশের সময় স্ত্রীর বীর্য দেখা যায়, কিন্তু আমি বুঝতে পারছি না, এটা কি পাতলা না গাঢ়, এখন কি গোসল ফরজ হবে?

স্ত্রীর উত্তেজনার শুরুতেই লজ্জাস্থানে পানি চলে আসে এবং কিছু সময় এই পানি থেকেই যায়, সহবাসের পূর্ব উত্তেজনা পর্যন্তই থাকে,

এখন প্রশ্ন সহবাস না করে এভাবে উত্তেজনার কারনে কি গোসল ফরজ হবে?

ভালুকা, ময়মনসিংহ।

উত্তর

প্রবেশ করানো উচিত নয়। এতে লজ্জাস্থান ক্ষতিগ্রস্ত হবার সম্ভাবনা রয়েছে। তা ছাড়া আঙ্গুল থেকে বিভিন্ন রকম জীবাণু চলে যেতে পারে যেটা হয়ত ক্যান্সার সৃষ্টির কারণও হতে পারে। তাই বিরত থাকতে হবে।

ভিতরে বীর্য থাকার কারণে গোসল ফরজ হবে না। যদি বের হয়ে পড়ে, তাহলে গোসল করতে হবে।

শুধু উত্তেজনার কারণে গোসল ফরজ হয় না। বরং উত্তেজনার সাথে যদি বীর্য লজ্জাস্থান থেকে বাইরে চলে আসে, তাহলেই কেবল গোসল করা ফরজ হয়।

উল্লেখ্য,

সহবাস করলে স্বামী-স্ত্রী উভয়ের উপর গোসল করা ফরজ। স্বামী-স্ত্রীর সহবাসের ক্ষেত্রে স্ত্রীর গোপনাঙ্গে পুরুষাঙ্গ সর্বনিম্ন সুপারি পরিমাণ অংশ প্রবেশ করালেই উভয়ের ওপর গোসল ফরজ হয়ে যাবে। তাতে বীর্যপাত হোক আর না হোক; উভয়কে গোসল করতে হবে। (বুখারি ও মুসলিম)

الأصبع ليس ألته للجماع (رد المحتار-1/305)

وفى السراج: ان اراد بذلك تسكين الشهوة المفرطة الشاغلة للقلب وكان عزبا لا زوجة له ولا امة أو كان الا أنه لا يقدر على الوصول اليها لعذر قال ابو البيث ارجو ان لا وبال عليه واما اذا فعله لإستجلاب الشهوة فهو آثم (رد المحتار-3/371)

وفرض الغسل عند خروج المنى من العضو……، بشهوة أى لذة ولو حكما كمحتلم….، وعند إيلاج حشفة هى ما فوق الختان آدمى…….، وإن لم ينزل منيا بالإجماع (الدر المختار مع رد المحتار-1/295-299)

وامعانى الموجبة للغسل إنزال المنى على وجه الدفق والشهوة (هداية-1/32عَنْ عَلِيٍّ، قَالَ: كُنْتُ رَجُلًا مَذَّاءً فَأَمَرْتُ رَجُلًا أَنْ يَسْأَلَ النَّبِيَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، لِمَكَانِ ابْنَتِهِ، فَسَأَلَ فَقَالَ: «تَوَضَّأْ وَاغْسِلْ ذَكَرَكَ» (صحيح البخارى، رقم-269)

عَنِ ابْنِ عَبَّاسٍ، رَضِيَ اللهُ عَنْهُ قَالَ: «هُوَ الْمَنِيُّ وَالْمَذْيُ وَالْوَدْيُ» فَأَمَّا الْمَذْيُ وَالْوَدْيُ فَإِنَّهُ يَغْسِلُ ذَكَرَهُ وَيَتَوَضَّأُ , وَأَمَّا الْمَنِيُّ , فَفِيهِ الْغُسْلُ “ (طحاوى، رقم الحديث-259)

ফতওয়া লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

2 thoughts on “স্ত্রীর লজ্জাস্থানে আঙ্গুল প্রবেশ করানো ও ভেজা অনুভব হলে হুকুম কী?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: