(পর্ব-১) আল্লাহকে ব্রাহ্ম ও বিষ্ণু বলে ডাকা যাবে

মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী


ডাক্তার জাকির নায়েক ইসলাম প্রচারের নামে সুপরিকল্পিতভাবে নিজের গর্হিত ভ্রান্ত মতবাদ প্রচার করে চলেছেন। তিনি ইসলামের নামে কাদিয়ানী, শিয়া, রাফেজী ও বাহায়ীদের মতো নতুন মতধারা সৃষ্টি করেছেন। তার ভ্রান্ত মতবাদের এ সকল বিষয় মাসিক আদর্শ নারীতে বিগত চার বছরের অধিককাল যাবত ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করা হয়েছে এবং এসবের বাইরেও তার অনেক ভ্রান্ত মতবাদ রয়েছে।

ডাক্তার জাকির নায়েকের এ সকল গোমরাহী মতবাদের কোনটা আকীদাসংশ্লিষ্ট, আবার কোনটা মাসআলাবিষয়ক। উদাহরণ স্বরূপ তার সেই ভ্রান্ত ধর্মমতের কয়েকটি উল্লেখযোগ্য বিষয় নিম্নে তুলে ধরা হলো–


 

ডাক্তার জাকির নায়েকের নতুন ধর্মমতের থিউরি—১

আল্লাহর নাম’ সম্পর্কে ডাক্তার জাকির নায়েকের মতবাদ হলো

(১) “ মহান আল্লাহকে হিন্দুদের দেবী-দেবতা তথা ব্রাহ্ম, বিষ্ণু প্রভৃতি নামে ডাকা যাবে।”

(দ্রষ্টব্য : ডা. জাকির নায়েক লেকচার সমগ্র, ভলিয়াম নং ১, পৃষ্ঠা নং ২৬৫ ॥ মুদ্রণ ও প্রকাশনায় : পিস পাবলিকেশন, বাংলা বাজার–ঢাকা)

ডাক্তার জাকির নায়েকের উক্ত লেকচারের ভিডিও ফাইল ইন্টারনেটের বিভিন্ন সাইটে পাওয়া যায়। ইউটিউবে সরাসরি তার সেই বক্তব্য নিম্নোক্ত স্ক্রিপ্টে শুনতে পাবেন (উল্লেখ্য যে, এ ভিডিওটির ৭ মিনিট ২৫ সেকেন্ড থেকে সেই বিষয়ের কথা রয়েছে) —


 

আল্লাহর নাম’ সম্পর্কে ডাক্তার জাকির নায়েকের আরো মতবাদ হলো–
(২) “আল্লাহকে পৃথিবীর যে কোন নামে ডাকা যাবে, তবে নামটি সুন্দর হতে হবে।”

(দ্রষ্টব্য : ডা. জাকির নায়েক লেকচার সমগ্র, ভলিয়াম নং ২, পৃষ্ঠা নং ৩৮০ ॥ মুদ্রণ ও প্রকাশনায় : পিস পাবলিকেশন, বাংলা বাজার–ঢাকা)

ইন্টারনেটের ইউটিউবে তার সেই বক্তব্য নিম্নোক্ত ভিডিও স্কিপ্টে রয়েছে (উল্লেখ্য যে, এ ভিডিওটির ৭ মিনিট ৪ সেকেন্ড থেকে এ কথাটি পাবেন)–


 

♦ পর্যালোচনা ♦

 

এটা শিরকী মতবাদ। মহান আল্লাহকে পৃথিবীর যে কোন সুন্দর নামে ডাকা যাবে না। জাকির নায়েকের এ সংক্রান্ত বক্তব্য সম্পূর্ণ ভুল। বরং আল্লাহ তা‘আলাকে তাঁর জন্য নির্ধারিত ৯৯ নামে ডাকা কর্তব্য। পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ বলেন–
وَلِلّٰہِ الۡاَسۡمَآءُ الۡحُسۡنٰی فَادۡعُوۡہُ بِہَا
“আল্লাহর সুন্দরতম নামসমূহ রয়েছে। সুতরাং তাঁকে এ নামসমূহের দ্বারা ডাকো।” (আল-কুরআন, সূরাহ আ‘রাফ, আয়াত নং ১৮০)

অবশ্য যে কোন ভাষায় মহান আল্লাহর এ নামগুলোর অর্থসূচক কোন শব্দ দ্বারাও আল্লাহ তা‘আলাকে ডাকা যাবে, তবে এর জন্য শর্ত হলো, সেই শব্দটি বিধর্মীদের কোন বাতিল মা‘বূদ বা গাইরুল্লাহর জন্য ব্যবহৃত না হতে হবে। অন্যথায় সেই শব্দ দ্বারা আল্লাহ তা‘আলাকে ডাকা যাবে না। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তা‘আলা ইরশাদ করেন–
وَذَرُوا الَّذِیۡنَ یُلۡحِدُوۡنَ فِیۡۤ اَسۡمَآئِہٖ ؕ سَیُجۡزَوۡنَ مَا کَانُوۡا یَعۡمَلُوۡنَ
“তাদেরকে বর্জন করো যারা আল্লাহর নামের ব্যাপারে সীমা লংঘন করে। অচিরেই তারা যা করে চলেছে তার প্রতিফল পাবে।” (আল-কুরআন, সূরাহ আ‘রাফ, আয়াত নং ১৮০)

সুতরাং হিন্দুদের দেবতা ব্রাহ্ম বা বিষ্ণু নামে আল্লাহ তা‘আলাকে ডাকা যাবে না। অথচ ডাক্তার জাকির নায়েকে বলেছেন, ব্রাহ্ম বা বিষ্ণু নামে আল্লাহ তা‘আলাকে ডাকা যাবে। (নাউযুবিল্লাহ)

ডাক্তার জাকির নায়েকের এ দাবী সম্পূর্ণ অমূলক ও ইসলামের মুলনীতির পরিপন্থী। এটা মহান আল্লাহর নামের ব্যাপারে ইলহাদ করার শামিল–যা কুফরী কাজ।

(প্রমাণের জন্য দেখুন : সহীহ বুখারী, হাদীস নং ২৭৩৬/ বাদায়িউল আক্বায়িদ, ১ম খণ্ড, ১৬৯ পৃষ্ঠা)

আপনার মন্তব্য