(পর্ব-১০) রাসূলুল্লাহ (সা.)কে প্রচলিত মিডিয়ার (টিভি-সিনেমার) সাথে জড়ানো

মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী


রাসূলুল্লাহ (সা.)কে প্রচলিত মিডিয়ার সাথে জড়িয়ে ডাক্তার জাকির নায়েকের মতবাদ হলো–

ডাক্তার জাকির নায়েক বলেন–

“ যদি আজকের দিনে নবীজী বেঁচে থাকতেন, আমার ধারণা–তিনি আজকের এই মিডিয়াকে (টিভি-সিনেমা প্রভৃতিকে) পুরোপুরি ব্যবহার করতেন। ”

(দ্রষ্টব্য : ডা. জাকির নায়েক লেকচার সমগ্র, ভলিয়াম নং ১, পৃষ্ঠা নং ৪৫৬ ॥ প্রকাশনায় : পিস পাবলিকেশন–ঢাকা)

ডাক্তার জাকির নায়েক “Media and Islam : War or Peace” শীর্ষক লেকচারের প্রশ্নোত্তর পর্বে এ কথা বলেন। লিখিত আকারের বর্ণিত লেকচার সমগ্র-এর রেফারেন্সের পাশাপাশি তার উক্ত লেকচারের ভিডিওর রেফারেন্সও রয়েছে। তার উ্ক্ত লেকচারের ভিডিও-স্ক্রিপ্ট ইন্টারনেটের ইউটিউবে “Media & Islam War or Peace ? by Dr. Zakir Naik” নামে পাওয়া যায়। ইউটিউবে তার উক্ত লেকচার শুনতে নিম্নোক্ত লিঙ্কে লগইন করুন (উল্লেখ্য, এ ভিডিওটির ৩ ঘন্টা ২২ মিনিট ২৫ সেকেন্ড থেকে সেই বক্তব্যটি রয়েছে) –


এ ছাড়াও তার উক্ত লেকচারের বাংলা ভার্সন ইউটিউবে “Bangla: Dr. Zakir Naik’s Lecture – Media and Islam: War or Peace” নামে রয়েছে। তার উক্ত লেকচার বাংলা ভার্সনে শুনতে ইউটিউবের নিম্নোক্ত লিঙ্কে লগইন করুন (উল্লেখ্য, এ ভিডিওটির ৩ ঘন্টা ১৭ মিনিট ২৮ সেকেন্ড থেকে সেই বক্তব্যটি পাবেন) –

############  পর্যালোচনা  #############

ডাক্তার জাকির নায়েক তার লেকচারে মিডিয়ার পরিচয় দিতে গিয়ে টিভি, সিনেমা প্রভৃতিকে মিডিয়ার অন্তর্ভুক্ত বলে বুঝিয়েছেন। এতে তার উপরিউক্ত বক্তব্যের অর্থ হয়–রাসূলুল্লাহ (সা.) বেঁচে থাকলে টিভি-সিনেমাও ব্যবহার করতেন (নাউযুবিল্লাহ)। এটা কেমন করে হতে পারে যেখানে স্বয়ং রাসূলুল্লাহ (সা.) জীবের ছবির প্রদর্শনকে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করেছেন, অথচ ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার প্রধান উপজীব্যই হলো জীবের ছবি! তা ছাড়া এক্ষেত্রে পর্দা লংঘনের বিষয়ও জড়িত–যেমনটা দেখা যায় ডাক্তার জাকির নায়েকের পিসটিভির মিডিয়ায়–যেটাকে তিনি ইসলামসম্মত বলে দাবী করেন! এ ছাড়াও এতে আরো বিভিন্নরকমের খারাবি রয়েছে। যে কারণে বহু মুহাক্কিক আলেম এসব মিডিয়ার ব্যবহারকে সমর্থন করেন না। সুতরাং এমন আপত্তিকর বিষয়ের সাথে রাসূলুল্লাহ (সা.)কে জড়ানো ডাক্তার জাকির নায়েকের চরম ধৃষ্টতা।

তা ছাড়া ‘রাসূলুল্লাহ (সা.) বর্তমানে বেঁচে থাকলে তিনি প্রচলিত মিডিয়াকে পুরোপুরি ব্যবহার করতেন’ বলে ডাক্তার জাকির নায়েক এ বিষয় মেনশন করে দেয়ার কে? অধিকন্তু প্রচলিত মিডিয়ার পুরোপুরি ব্যবহারের ব্যাপারটি সম্পূর্ণ ইসলামসম্মত হওয়া নিশ্চিত না হওয়া সত্ত্বেও এমন বিতর্কিত বিষয়ের সাথে ডাক্তার জাকির নায়েক মহানবী (সা.)কে জড়িয়ে দিলেন! এটা নবীজীর শানে তার চরম বেআদবী বৈকি!

.

(প্রমাণ : আল-কুরআন, সূরাহ আন‘আম, ১৫১ আয়াত/ সহীহ বুখারী, হাদীস নং ৫৫৩৬ ও ৬২৪৩/ সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ৫৩৮২/ মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং ৩১৭৬)

 

আপনার মন্তব্য