‘আমার মসজিদ ফেরত চাই’ : অনলাইনে ঝড় তুলেছে ওয়াইসির টুইট বার্তা

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যার শহীদ বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির তৈরির পক্ষে রায় ঘোষণার পর থেকে এ নিয়ে অনলাইনে ক্ষোভ প্রকাশ করছে মানুষ। বিশেষ করে মুসলমানরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

এই মামলার অন্যতম পক্ষ সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবীরা এবং অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড এর বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন দাখিল করার কথা বিবেচনা করছেন।

সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যারই অন্যত্র একটি মসজিদ বানানোর জন্য যে পাঁচ একর জমি বরাদ্দ করেছে তা নিয়েও মুসলিম সমাজের নেতারা একমত নন।

এরইমধ্যে ভারতের মুসলিম এমপি আসাদউদ্দিন ওয়াইসি-র এক টুইট বার্তা অনলাইনে ঝড় তুলেছে।

‘আমি আমার মসজিদ ফেরত চাই’ – শহীদ বাবরি মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণের রায় নিয়ে গত ১৫ই নভেম্বর এক টুইট বার্তায় বলেন ওয়াইসি।

তার সাথে তিনি জুড়ে দেন আউটলুক পত্রিকায় প্রকাশিত তার একটি সাক্ষাতকার – যাতে তিনি প্রশ্ন তোলেন: ‘১৯৯২ সালে বাবরি মসজিদ ভাঙা না হলে কি সুপ্রিম কোর্ট এই রায় দিতে পারতো?’

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি হচ্ছেন ভারতীয় মুসলিমদের একটি সংগঠন অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বা এআইএমআইএম-এর প্রধান এবং হায়দরাবাদের এমপি।

টুইটারে ওয়াইসির ফলোয়ারের সংখ্যা প্রায় ৭ লক্ষ।

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি’র টুইট

ওয়াইসির টুইট ‘আই ওয়ান্ট মাই মস্ক ব্যাক’ অর্থাৎ ‘আমি আমার মসজিদ ফেরত চাই’ – টুইটারে হ্যাশট্যাগে পরিণত হয় এবং এর পক্ষে-বিপক্ষে প্রচুর মন্তব্য পড়তে থাকে।

টুইটটি এ পর্যন্ত ৮ হাজার ৮শ’ বারেরও বেশি রিটুইট হয়েছে, লাইক দিয়েছেন ৩২ হাজারেরও বেশি। এ নিয়ে মন্তব্য করেছেন ২২ হাজারেরও বেশি।

সালিল শেখ নামে একজন মন্তব্য করেন, ‘আমিও চাই।’

ইরিনা আকবর নামে একজন মন্তব্য করেন: “একসময় বাববি মসজিদ বলে একটি মসজিদ ছিল, যা ১৫২৮ সালে তৈরি হয়, ১৯৪৯ সালে অপবিত্র করা করা হয়, এবং ১৯৯২ সালে ধ্বংস করা হয়। কিন্তু আমাদের স্মৃতিতে এ মসজিদ চিরদিন থাকবে।”

কোসার পারভেজ নামে একজন মন্তব্য করেন, “আমাদের ভারত মহান, তারা (নাথুরাম) গডসে-কে হিরো বলে মানে, আর গান্ধীকে বানায় ভিলেন।”

শুধু টুইটারে নয়, অনলাইনে নানা ওয়েবসাইটে নিবন্ধ লেখা হচ্ছে এই বিতর্ককে কেন্দ্র করে।

‘দি ওয়্যার’ নামে ওয়েবসাইটে এক নিবন্ধে নন্দিনী সুন্দর নামে একজন লেখেন, ভারতের মুসলিমরা সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিল তাদের নাগরিকত্বে নিশ্চয়তা চেয়ে কিন্তু তাদের দেয়া হয়েছে পাঁচ একর জমি। তিনি লেখেন, শুধুমাত্র ন্যায় বিচারের ভিত্তিতেই স্থায়ী শান্তি ও মৈত্রী পুনপ্রতিষ্ঠা হতে পারে।

‘স্ক্রল ডট ইন’-এ নরেশ ফার্নান্দেজ লেখেন, বাবরি মসজিদ যারা ধ্বংস করেছিল শুধুমাত্র তাদের বিচারের আওতায় আনার মধ্যে দিয়েই অযোধ্যা মামলায় ন্যায়বিচার হতে পারে।

4 thoughts on “‘আমার মসজিদ ফেরত চাই’ : অনলাইনে ঝড় তুলেছে ওয়াইসির টুইট বার্তা

  1. বাবরি মসজিদ যারা ধ্বংস করেছিল শুধুমাত্র তাদের বিচারের আওতায় আনার মধ্যে দিয়েই অযোধ্যা মামলায় ন্যায়বিচার হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: