Friday, February 22, 2019
টাই

টাই এর কথা কুরআনে আছে? লা-মাযহাবী কাজী ইব্রাহীম সাহেবের কুরআন অপব্যাখ্যার জবাব

বিশিষ্ট আহলে হাদীস সালাফী আলেম শাইখ কাজী ইবরাহীম বলেছেন– “টাই মুসলিম গৌরবের স্মরণিকা। জাকির নায়েকের টাই বৈধ। টাই-এর কথা কুরআনে আছে...
ব্যাংক ডিপোজিটের প্রকারভেদ ও তার শরয়ী বিধান

ব্যাংক ডিপোজিটের প্রকারভেদ ও তার শরয়ী বিধান

এই লেখাটিতে পাচ্ছেন ব্যাংকিং পরিভাষায় ব্যাংক ডিপোজিট চার প্রকার: ব্যাংক ডিপোজিটগুলোর শরয়ী অবস্থান: প্রথম তিন প্রকার করজের হুকুমে দুটি শর্তের কারণে: সাধারণ ব্যাংগুলোতে অর্থ রাখার শরয়ী হুকুম: ইসলামী ব্যাংকগুলোর হুকুম: অমুসলিম দেশের ব্যাংকের হুকুম: সুদী টাকার হুকুম:
মাওলানা সাদ সাহেব

কুরআন-হাদীসের ভুল বা অপব্যাখ্যার ব্যাপারে শরী‘আতের নির্দেশ- সা‘আদ সাহেব A to Z

মাওলানা সা‘আদ সাহেবের ব্যাপারে A to Z অর্থাৎ বিস্তারিত এই আর্টিকেলটি লিখেছেন জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়ার শাইখুল হাদীস ও প্রধান মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. 

তাবলিগ ইস্যুতে ১৫ জানুয়ারি দেওবন্দ যাচ্ছেন যারা

তাবলিগি সংকট নিরসন ও মাওলানা সাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানতে ১৫ জানুয়ারির দারুল উলুম দেওবন্দ সফর চূড়ান্ত করা হয়েছে। তবে কোনো কারণে তারিখ দুয়েকদিন পেছাতেও...
ইসলাম-ও-মওদূদীবাদ

ইসলাম ও মওদূদীবাদ : সংক্ষেপে ১৫টি মন্তব্য ও খণ্ডন

মওদূদী সাহেবের ভ্রান্ত মতবাদের দিকে জাস্ট ইঙ্গিত করতে গেলেও তা মাঝারী আকারের একটি স্বতন্ত্র বইয়ের আকার ধারণ করবে। কাজেই আমরা এখানে মওদূদী সাহেবের ঐ সমস্ত ভ্রান্তির মধ্য থেকে ১৫টি নিয়ে আলোচনা করব। আপনারা পড়লে বুঝতে পারবেন যে,  যাদের দ্বীনের সাথে সামান্যতম সম্পর্ক আছে, তারাও এমন কথা কখনই বলতে পারে না।
তাবিজ কবজ ঝাড়ফুঁক জাদু টোনা পানি পড়া জিনের আসর ওঝা

তাবীজ-কবজ ও ঝাড়-ফুঁক সম্বন্ধে আক্বিদা বা বিশ্বাস

বর্তমান যুগে তাবীজ-কবজ ও ঝাড়-ফুঁক ব্যাপারে মানুষের মাঝে বাড়াবাড়ি ও ছাড়াছাড়ি পরিলক্ষিত হচ্ছে। কেউ কেউ তো ঝাড়-ফুঁক, তাবীয-কবজকে একেবারে অস্বীকার করে এবং এ সকল কাজকে না-জায়িয, হারাম এমনকি শিরক ও মনে করে।

১২ জন বিশ্বখ্যাত মুসলিম বুদ্ধিজীবীর দৃষ্টিতে তাবলিগ জামাত

মুহাম্মদ ত্বহা হুসাইন: তাবলিগ জামাতের পথচলার এখনও একটি শতাব্দী পার হয়নি। অথচ এই অল্প সময়ের ব্যবধানে তাবলিগ জামাতের কার্যক্রম পৌঁছে গেছে পৃথিবীর আনাচে-কানাচে। বিশ্ব মানচিত্রে এমন দেশ তো...

(পর্ব-৯) হায়াতুন্নবী (সা.) ও শহীদগণের জীবিত থাকা অস্বীকার

তারা নবীজীর জানাযার নামাযও পড়েছেন। যুদ্ধের ময়দানে যখন মুসলিমরা শহীদ হয়েছেন, সাহাবীগণ তাদের জানাযার নামাযও পড়েছেন। জীবিত কারো জানাযার নামায কি পড়া যায়? না। বরং এখানে কুরআনের আয়াত বলছে–শত্রুরা যখন উল্লাস করে বলে–তোমাদের লোকদের মেরেছি, তবে তাদের সাথে পরকালে দেখা হবে। তারাই সবচেয়ে লাভবান। সুতরাং এখানে শারীরিক বেঁচে থাকার কথা বলা হচ্ছে না। যদি শারীরিকভাবে বেঁচে থাকতেন, সাহাবীগণ তাদেরকে কবর দিবেন কেন?
সাদ সাহেব বারবার রুজু করার পরেও কেন গৃহিত হচ্ছে না? দারুল উলূম দেওবন্দের ওজাহাতী বক্তব্য

সাদ সাহেব বারবার রুজু করার পরেও কেন গৃহিত হচ্ছে না? দারুল উলূম দেওবন্দের ওজাহাতী...

দেওবন্দের উলামায়ে কিরাম কেন সাদ সাহেবের রুজুতে সন্তুষ্ট হতে পারছেন না?